মাথা ব্যথা দূর করার ঘরোয়া উপায় (Home remedies for headache)

আমাদের সমাজের  আট থেকে আশি সকলেই মাথা ব্যথার শিকার হচ্ছে। মূলত: আবহাওয়ার পরিবর্তন, পরিবেশ দূষণ, অত্যধিক স্ট্রেস, খাওয়ার অনিয়ম, শারীরিক রোগ বহু কারণে আমাদের মাথা যন্ত্রণা হতে দেখা যায় । 

আমাদের হাতের কাছেই এমন কিছু প্রাকৃতিক উপাদান রয়েছে যেগুলির  ব্যবহার মাথা ব্যথা কমাতে সাহায্য করবে । আজকের আলোচনায় আমরা দেখবো মাথা ব্যথা দূর করার ঘরোয়া উপায় সহ  মাথা ব্যথার প্রকারভেদ ও কারণ সমূহঃ 

ব্যথার কয়েকটি সাধারণ প্রকারভেদ  নিম্নে উল্লেখ করা হলো :

ব্যথার কয়েকটি সাধারণ প্রকারভেদ

১) টেনশন জনিত কারণে মাথা ব্যথা: (Headache due to tension)

দিনের বেশিরভাগ সময়ই স্ট্রেস কিংবা টেনশনের কারণে আমাদের মাথা ব্যথা হয়ে থাকে। 

২) মাইগ্রেনের ফলে মাথা ব্যথা: (Headache due to migraine)

মাথা ব্যথার বিভিন্ন প্রকারভেদের মধ্যে অন্যতম একটি হলো মাইগ্রেন।  মাইগ্রেনের ফলে মাথার ব্যথা মূলত একপাশে ঘটে । যার ফলে সেই জায়গায় প্রচন্ড যন্ত্রণা হওয়ার পাশাপাশি সেদিকে গলা পর্যন্ত ব্যথা প্রভাব বিস্তার করে।

৩) রিবাউন্ড মাথা ব্যথা: (Rebound headache)

এটি মূলত অতিরিক্ত ওষুধ ব্যবহারের ফলে ঘটিত মাথা ব্যথা হিসেবে পরিচিত। চিকিৎসার লক্ষ্যে ওষুধের অধিক ব্যবহারের ফলে কিংবা ব্যথানাশক ওষুধের অধিক ব্যবহারের ফলে এই ধরনের মাথা ব্যথালক্ষ্য করা যায়।

৪) হালকা মাথা ব্যথা: (Mild headache)

এ ধরনের মাথা ব্যথা সাধারণত পনেরো মিনিট থেকে তিন ঘন্টা পর্যন্ত স্থায়ী থাকে। মূলত দীর্ঘক্ষন কোন চিন্তার কারণে কিংবা মাথা নিচু করে বই পড়া কিংবা কোন জিনিস নিয়ে কাজ করার ফলে এ ধরনের  মাথা ব্যথাহতে পারে।

মাথা ব্যথার কারণ: (Causes headaches)

মাথা ব্যথার কারণ

কমবেশি মাথা ব্যথার সম্মুখীন আমাদের সকলেরই হতে হয়েছে । তবে হঠাৎ কী কারণে মাথা ব্যথার সৃষ্টি হয় সেই কারণই হয়ত আমাদের সকলের কাছেই সব সময় পরিষ্কার থাকে না । মাথাব্যথার জন্য আমাদের বেশ কিছু কারণ চোখের সামনেই রয়েছে । এক নজরে জেনে নিন কী কী কারণে মাথা ব্যথা হতে পারে ?

  • সর্দি, কাশি বা জ্বর থাকলে  মাথা ব্যথা  লক্ষ্য করা যায়।
  • কানের সংক্রমণ, গলার সংক্রমণ কিংবা সাইনোসাইটিসের মতন রোগ সংক্রমণ ঘটলে হঠাৎ স্বাস্থ্যের অবনতি ঘটলে মাথা ব্যথা লক্ষ্য করা যায়।
  • মানসিক চাপ কিংবা হতাশার কারণে মাথা ব্যথা  যন্ত্রণার সৃষ্টি হতে পারে।
  • পারিপার্শ্বিক পরিবেশও মাথা ব্যথার অন্যতম কারণ হয়ে উঠতে পারে। অতিরিক্ত ধোয়া, দূষণ কিংবা জঞ্জাল পোড়ানো হতে থাকলে সে ক্ষেত্রে মাথা ভার কিংবা মাথা ব্যথার মত সমস্যা গুলি দেখা যায়।
  • যেকোনো ধরনের দৃঢ় গন্ধ যুক্ত পারফিউম, ধুপকাঠি কিংবা সুগন্ধি ব্যবহারের ফলে হঠাৎ মাথা ব্যথার সৃষ্টি হতে পারে।
  • দূষণ, জলবায়ুর পরিবর্তন, জোরে আওয়াজ, উজ্জ্বল আলো, গাড়ির আওয়াজ ও  মাথা ব্যথার অন্যতম কারণ হতে পারে ।
  • জিনগত কারনেও অনেক সময় মাথা ব্যথা হতে পারে। মূলত যাদের পারিবারিক ইতিহাসে পরিবারের অন্যান্য ব্যক্তিদের মাথা ব্যথা কিংবা মাইগ্রেনের মত সমস্যা রয়েছে সেক্ষেত্রে মাথা ব্যথার সমস্যা হতে পারে।

মাথা ব্যথা এমন একটি রোগ যেটি আপনাকে যথেষ্ট ভাবে দুর্বল করে দিতে পারে। এছাড়াও এর ফলে আপনার সারা শরীর প্রায় কার্যক্ষমতা হারায় এবং প্রতিদিনের কাজকর্ম আপনার করা অসম্ভব হতে পারে। মাথা ব্যথা দূর করার ঘরোয়া উপায় রয়েছে যা আপনি অবলম্বন করতে পারেন।

মাথা ব্যথা কমানোর ঘরোয়া উপায় : (Home Remedies for Headache)

মাথা ব্যথা কমানোর ঘরোয়া উপায়

আজ আমরা জানবো ঘরোয়া পদ্ধতিতে কোন কোন উপাদান গুলি ব্যবহার করে মাথা ব্যথা চিরতরে দূর করবেন।

১) আদার সাহায্যে মাথা ব্যথাদূর করুন : (Relieve headache with ginger)

আদা চা যেকোনো ধরনের মাথা ব্যথা কমাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে । আদা হল হাতের কাছে থাকা একটি সহজলভ্য উপাদান। এটি প্রতিদিন সকালে এবং বিকেলে দুবার খেতে পারেন। 

২) মাথা ব্যথা কমাতে পুদিনা পাতার ঘরোয়া  ব্যবহার : (Home use of mint leaves to reduce headache)

পুদিনা পাতার রস হলো অস্বস্তিকর মাথা ব্যথা কমানোর জন্য একটি অন্যতম ঘরোয়া উপাদান । পুদিনা পাতার মধ্যে থাকা ম্যানথল ও ম্যানথন জাতীয় উপাদান গুলি মাথা ব্যথাদূরীকরণে মুখ্য ভূমিকা পালন করে। এছাড়া  এটি শরীরে এক ধরনের আরামদায়ক পরিস্থিতিরও  সৃষ্টি করে, যার ফলে মাথা ব্যথা থেকে রেহাই পাওয়া যায়।

৩) তুলসী পাতা  দিয়ে মাথা ব্যথার ঘরোয়া প্রতিকার : (Home remedies for headache with basil leaves)

অনেক সময় মাথায় সর্দি জমে গেলে কিংবা দীর্ঘদিন কাশির ফলে মাথা যন্ত্রণা দেখা যায়। সেক্ষেত্রে তুলসী এ ধরনের মাথা ব্যথা কমাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। তুলসীর মধ্যে থাকা অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল সর্দির ভাইরাসকে ধ্বংস করে শ্লেষ্মাকে পাতলা করতে সহায়তা করে থাকে । যার ফলে মাথা হালকা হতে শুরু করে। মাথা ব্যথা কমাতে তুলসী পাতার চা ও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

৪) পিপারমেন্ট তেল দিয়ে কমান মাথা ব্যথা: (Reduce headaches with peppermint oil) 

ঘরোয়া জিনিস গুলির মধ্যে  অন্যতম একটি উপাদান হলো পিপারমেন্ট তেল। এটি টেনশন জনিত মাথা ব্যথায় ম্যাজিকের মতন কাজ করে থাকে। মাথা ব্যথার ক্ষেত্রে পিপারমেন্ট তেল প্যারাসিটামল এর মতন কাজ করে।

৫) মাথা ব্যথা কমাতে যষ্টিমধুর ঘরোয়া ভূমিকা : (Home remedies for headache relief)

যষ্টিমধু হলো  মাথা ব্যথার ঘরোয়া প্রতিকার করতে অন্যতম একটি প্রাকৃতিক উপাদান । এটি লজেন্সের মতো কিংবা চা বানিয়ে কিংবা এর তেল খাওয়া যায়। মূলত মাথা ব্যথা, হাইপারটেনশন, পেশির দুর্বলতা, শরীরে পটাশিয়ামের পরিমান  কমে গেলে কিংবা হূদযন্ত্রের সমস্যা দেখা দিলে যষ্টিমধু  গ্রহণ করা যেতে পারে। 

৬) মাথা ব্যথা কমাতে রোজমেরির ভূমিকা : (Role of Rosemary in headache relief)

রোজমেরি  হল একটি অন্যতম সুগন্ধি দ্রব্য । এটি মাথা ব্যথা, গলা ব্যথার মতন সমস্যা গুলির সমাধানে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে । 

৭) লবঙ্গ দিয়ে চিরতরে কমান মাথা ব্যথা: (Reduce headaches forever with cloves)

মাথার যেকোন ধরনের যন্ত্রণা কমাতে  লবঙ্গ হলো একটি অন্যতম উপাদান । এটি মাথার যন্ত্রণা কমিয়ে একটি ঠাণ্ডা অনুভূতি প্রদান করে। এর মধ্যে থাকা উপাদান গুলি মাথা যন্ত্রণা কমিয়ে সেখানে একটি আরামদায়ক অনুভূতি প্রদান করে। 

 ৮) মাথা ব্যথা কমাতে  ল্যাভেন্ডার অয়েলের ভূমিকা : (Role of lavender oil in headache relief)

ল্যাভেন্ডার অয়েল হল অন্যতম একটি প্রাকৃতিক উপাদান, যেটি মাথা ব্যথা মাইগ্রেনের ব্যথা, যেকোনো ধরনের টেনশন কিংবা উদ্বেগ দূর করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এটি দিয়ে ঘরোয়া পদ্ধতিতে মাথা ব্যথার সমস্যা সমাধান করা যায়।

৯) মাথা ব্যথা কমাতে লেবুর ভূমিকা : (Role of lemon in reducing headache)

মাথা ব্যথা কমাতে একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রাকৃতিক উপাদান হলো লেবু । এর সাথে যদি কিছু পরিমাণ লবণ যোগ করা যায় সেটিও এই ব্যথা কমাতে আরো গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। 

মূলত লেবুর মধ্যে থাকা সাইট্রাস জাতীয় উপাদান মাথা ব্যথা বা প্রদাহ কমাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। মাইগ্রেনের ব্যথা কমাতে এটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। 

১০) চন্দন গুঁড়ো দিয়ে কমান মাথা ব্যথা: (Reduce headache with sandalwood powder)

চন্দন হলো গন্ধ চিকিৎসার মাধ্যমে মাথা ব্যথা কমাতে একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান । এটির সুন্দর গন্ধ নেওয়ার ফলে যে কোনো ধরনের মাথাব্যথা, চিন্তা কিংবা উদ্বেগ কমে গিয়ে মাথায় এক আরামদায়ক পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। 

১১) মাথা ব্যথা কমাতে সরষের তেলের ঘরোয়া ভূমিকা : (Home Uses of Mustard Oil to Relieve Headaches)

সরষের তেল মাথা ব্যথা কমাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। এটি মূলত রক্ত সঞ্চালনকে ত্বরান্বিত করে। এছাড়াও এটি শরীরে যথাযথ অক্সিজেন প্রদান করে থাকে। এছাড়াও এর মধ্যে থাকা উপাদান গুলি শরীরের যেকোনো সমস্যার সমাধান করতে সক্ষম। 

 ১২) মাথা ব্যথা কমাতে দারুচিনির ভূমিকা : (The role of cinnamon in reducing headache)

যেসব মাথা ব্যথা টেনশন, চাপ বা উত্তেজনার কারণে হয় সেগুলি কমাতে দারচিনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে । এর মধ্যে থাকা উপাদান গুলি মাথা ব্যথার থেকে মুক্তি প্রদান করে থাকে।

১৩) ক্যামোমিল চা দিয়ে কমান মাথা ব্যথা: (Reduce headaches with chamomile tea)

ক্যামোমিল চা হলো মাথা ব্যথার ঘরোয়া এবং প্রাকৃতিক উপাদান গুলির মধ্যে অন্যতম একটি উপাদান । এর মধ্যে থাকা বিভিন্ন উপাদানগুলি একটি আরামদায়ক অনুভূতি প্রদান করে থাকে। 

১৪) মাথা ব্যথার ঘরোয়া প্রতিকারে কফি : (Coffee as a home remedy for headache)

মাথা ব্যথা কমাতে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ দুটি পানীয় উপাদান হলো  চা এবং কফি । এই দুটোই মাথা ব্যথার ওষুধ হিসেবে ব্যবহার করা হয়ে থাকে। এছাড়া কফির মধ্যে থাকা ক্যাফিন এর বিভিন্ন বেদনানাশক উপাদান গুলি  মাথা ব্যথা কমাতে কিংবা মাথা ব্যথার চিকিৎসার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে । 

১৫) মাথা ব্যথা দূর করতে গ্রিন টি ব্যবহার করুন: (Use green tea to relieve headaches)

গ্রিন টির মধ্যে থাকা অ্যানালজেসিক এবং অ্যান্টি-ইনফ্লামেটরি উপাদানসমূহ মাথা ব্যথা কমাতে মুখ্য ভূমিকা পালন করে থাকে। গ্রিন টি খাওয়ার ফলে মাথাব্যথার পরিত্রান পাওয়ার পাশাপাশি শরীরের রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি ঘটবে, যা শরীরকে সুস্থ সবল রাখতে সহায়তা করবে।

১৬) গোলমরিচ ব্যবহার করে কমান মাথা ব্যথা: (Reduce headache by using pepper)

গোলমরিচের গন্ধ অ্যারোমা চিকিৎসায় ব্যবহৃত হয়ে থাকে। তাই মাথা ব্যথা কমাতে গোলমরিচের ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। মাইগ্রেন কিংবা টেনশনের কারণে যদি মাথা ব্যথাহয় তৎক্ষণাৎ এই মিশ্রণ ব্যবহারের ফলে মাথা ব্যথাথেকে রেহাই পাওয়া যাবে।

১৭) মাথা ব্যথা দূর করতে পান ব্যবহার করুন: (Use paan to relieve headache)

আয়ুর্বেদ শাস্ত্রে ব্যথা নিরাময়ের অন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান হলো পান। মূলত যে কোন ধরনের ব্যথা, মাথাব্যথা, টেনশন সমস্যা সমাধানে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে পান। দৈনিক যারা পান খান, তাদের মাথা ব্যথার সমস্যা কমই হয় বলে  এক  গবেষণায় দেখা গিয়েছে। 

শেষ কথা :

মাথা ব্যাথা এমন একটি রোগ যেটি আমাদের সারা শরীরকে ব্যস্ত করে তোলে।  আজকের প্রতিবেদন থেকে ইতিমধ্যেই জেনে নিয়েছেন মাথা ব্যথা দূর করার ঘরোয়া উপায় কিংবা মাথা ব্যথা থেকে দূরে থাকতে কি পদ্ধতি অবলম্বন করবেন।

আজ থেকেই এগুলো মেনে চলুন তাহলে মাথা ব্যথা আপনার থেকে দূরে থাকবে। তবে খুব বেশি যদি বাড়াবাড়ি হয় সেক্ষেত্রে ডাক্তারের শরণাপন্ন হওয়াই মঙ্গলজনক। মাথাব্যথাকে অবহেলা না করে সেটি যদি বাড়াবাড়ি পর্যায়ে পৌঁছায় অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নিন। এ ধরনের আপডেট পেতে অবশ্যই এই পেজে চোখ রাখুন।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে যেসব  খাবারে (Foods that increase immunity)

সর্দি কাশি থেকে মুক্তির প্রাকৃতিক চিকিৎসা (Natural Cough Remedies)

Leave a Comment