জাপানের নাগরিকত্ব পাওয়ার উপায়

বাংলাদেশের অনেকেই এখন স্বপ্ন দেখেন জাপানের নাগরিক হওয়ার। এজন্য অনেকেই ইন্টারনেটে সার্চ করে থাকেন জাপানের নাগরিকত্ব পাওয়ার উপায় ২০২৪ সম্পর্কে জানতে। আধুনিকতার যুগে এসে এখন জাপানে চাকরি করে পরবর্তীতে সে দেশে স্থায়ীভাবে থাকার স্বপ্ন অনেকেই দেখছেন। আমাদের আজকের আর্টিকেলে জাপানের নাগরিকত্ব পাওয়ার উপায় ২০২৪ সম্পর্কে সকল তথ্য জানতে পারবেন। কোন তৃতীয় ব্যক্তি বা দালালের কাছে যেতে হবে না এবং সকল তথ্য জানতে পারবেন ঘরে বসেই। জাপানের নাগরিকত্ব পাওয়ার উপায় ২০২৪ হিসেবে কি কি করতে হবে, জাপানে কতদিন কাজ করতে হবে নাগরিকত্বের জন্য, কত ধরনের ভিসা পাওয়া যায়, কত টাকা আয় থাকা আবশ্যক নাগরিকত্ব পাওয়ার জন্য, পার্মানেন্ট রেসিডেন্সির জন্য কত পয়েন্ট থাকতে হবে ইত্যাদি সকল বিষয় জানতে পারবেন এই একটি আর্টিকেলে। 

জার্মানে মোট কয়টি ভিসা দিয়ে থাকে – জাপানের নাগরিকত্ব পাওয়ার উপায় ২০২৪ 

জাপানের পাসপোর্ট অর্থাৎ ন্যাশনালিটি পাওয়ার জন্য প্রধানত তিনটি উপায় রয়েছে। 

  • ন্ডিপেন্ডিং ভিসা
  • অর্ডিনারি বা সাধারণ উপায়ে ভিসা 
  • জেনারেল ওয়ার্কিং ভিসা
  • প্রথম পর্যায়ে বিষয়টি হচ্ছে – ন্ডিপেন্ডিং ভিসা। যদি আপনি জাপানের কোন নাগরিক কে বিয়ে করে থাকেন তার মাধ্যমে আপনি জাপানি পাসপোর্ট এর জন্য অথবা নাগরিকত্ব পাওয়ার জন্য আবেদন করতে পারবেন।
  • দ্বিতীয়টি হচ্ছে – সাধারণ উপায়ে ভিসা। অর্থাৎ সাধারণভাবে কাজ করে পাসপোর্ট নিতে হবে।
  • তৃতীয়টি হচ্ছে- জেনারেল ওয়ার্কিং ভিসা। যদি আপনি সাইন্স এর কোন লোক থাকেন অর্থাৎ সাইন্টিস্ট বা ইঞ্জিনিয়ার অথবা প্রকৌশলী, সেক্ষেত্রে সুযোগ দেওয়া হবে পাসপোর্ট বানানোর জন্য।

জাপানের নাগরিকত্ব পাওয়ার উপায় ২০২৪ হিসেবে আজকের আর্টিকেলে দ্বিতীয় ভিসা অর্থাৎ সাধারণ উপায়ে পাসপোর্ট নেওয়ার সম্পর্কে আলোচনা করা হবে।

জাপানে স্থায়ীভাবে থাকার উপায়

জাপানে স্থায়ীভাবে থাকার জন্য প্রয়োজন হবে জাপানের নাগরিকত্ব। জাপানের নাগরিকত্ব পাওয়ার উপায় ২০২৪ হিসেবে এই পর্যায়ে জানতে পারবেন জাপানে কতভাবে থাকার উপায় রয়েছে এবং কিভাবে জাপানের নাগরিকত্ব পেতে পারেন। সাধারণত জাপানি স্থায়ীভাবে থাকতে হবে দুইটি বৈধ উপায় হয়েছে। যথা:

  • প্রথমটি হচ্ছে পি আর বা পার্মানেন্ট রেসিডেন্সি পারমিশন নেওয়া। আপনি দ্বৈত নাগরিক হিসেবে জাপানে থাকতে পারবেন। তবে নিজস্ব দেশের নাগরিকত্ব বা পাসপোর্ট বাতিল হবে না। 
  • দ্বিতীয়টি হচ্ছে সিটিজেনশিপ নেওয়া অর্থাৎ নাগরিকত্ব নেওয়া। এক্ষেত্রে জাপান দ্বৈত নাগরিকত্ব গ্রহণ করে না। সিটিজেনশিপ অথবা নাগরিকত্ব নিতে হলে আপনার নিজের বাংলাদেশের পাসপোর্ট জাপান কর্তৃপক্ষের কাছে জমা দিতে হবে। অর্থাৎ আপনার নিজের দেশের নাগরিকত্বকে বাতিল করতে হবে। 
Read More  যেসব খাবার শিশুর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় (Foods that boost baby's immune system)

এই দুইটি অপশন থেকে কোনটি বেছে নেওয়া ভালো এবং কোনটির কি সুবিধা রয়েছে সেটি জানানো হবে জাপানের নাগরিকত্ব পাওয়ার উপায় ২০২৪ এর পরবর্তী ধাপগুলোতে।

পি আর নাকি সিটিজেনশিপ কোনটি আপনার জন্য ভালো?

জাপানের নাগরিকত্ব পাওয়ার উপায় ২০২৪ আজিকেলের এই অংশ জানতে পারবেন একজন মানুষের জন্য জাপানে পি আর নাকি সিটিজেনশি প সবথেকে ভালো উপায় জাপানের নাগরিকত্ব পাওয়ার জন্য। সাধারণত জাপান সরকার কৌশলের মাধ্যমে রেশন কার্ড পি আর এর নাগরিকত্বকে বেশি করে থাকে অর্থাৎ নাগরিকত্ব নেওয়ার জন্য এরা বিভিন্ন ধরনের সুযোগ সুবিধা প্রস্তাব করে থাকে। তবে পি আর অর্থাৎ পার্মানেন্ট রেসিডেন্সি নেওয়ার জন্য অনেক কষ্টটা অবলম্বন করতে হয় নাগরিকদের। বিভিন্নভাবে যাচাই-বাছাই করে এবং অনেকটা সময় লেগে যায় পার্মানেন্ট রেসিডেন্সি নাগরিকত্ব পাওয়ার জন্য।

সাধারণত জাপানে আপনি দীর্ঘ ১০ বছর যদি না থাকেন তাহলে এখানকার পি আর বা পার্মানেন্ট রেসিডেন্সির জন্য “এজোকেন” যেটা জার্মানি ভাষায় বলা হয় এর জন্য আবেদন করতে পারবেন না। আবেদন করলেও আপনার এই আবেদনটি প্রক্রিয়াধীন থাকবে দীর্ঘদিন। এমনকি কারো কারো ক্ষেত্রে প্রায় এক বছর লেগে যেতে পারে এর রেজাল্ট হাতে পেতে কিন্তু নাগরিকত্বের ক্ষেত্রে আপনারা পাঁচ বছরের মধ্যে আবেদন করতে পারবেন। আবেদনের রেজাল্ট খুব দ্রুত দেখতে পারবেন এর পাশাপাশি যারা আবেদন করে তাদের আবেদন গ্রহণ করা সম্ভাবনা প্রচুর দেখা যায় অর্থাৎ নাগরিকত্বের ম্যাক্সিমাম আবেদন গ্রহণ করা হয়ে থাকে। এবং এ থেকে বোঝা যায় যে জাপান সরকার আসলে “এজোকেন”-কে সেভাবে উদ্বুদ্ধ করে না অর্থাৎ জাপান কর্তৃপক্ষ এটা চায় যে পার্মানেন্ট রেসিডেন্সি এর থেকে এখানকার নাগরিকত্ব নিয়ে থাকুক। 

এটার একটি মূল কারণ হচ্ছে- পি আর পাওয়া অর্থাৎ পার্লামেন্টভাবে এখানে বসবাস করার যে সুযোগ সুবিধা গুলো রয়েছে সেগুলো এখানকার সিটিজেনশিপের কাছাকাছি প্রায়। সিটিজেনশিপ হলে কেবল এখানকার নাগরিকত্বটি পাবেন কিন্তু ভোট দেওয়ার কোনো অধিকার আপনি। তবে এতোটুকু এক্সট্রা সুযোগ টুকু পাচ্ছেন আর সম্পূর্ণ এজোকেনধারী (পি আর) অর্থাৎ পার্মানেন্ট রেসিডেন্সি সুযোগ-সুবিধা একজন নাগরিকত্বের সুযোগ সুবিধা একই। আপনি যদি একজন জার্মানের নাগরিক হয়ে থাকেন এখানকার যে সুযোগ সুবিধা গুলো পাবেন সেক্ষেত্রে ভোট দেওয়ার ছাড়া সম্পূর্ণ সুযোগ সুবিধা আপনি ভোগ করতে। 

তবে আরেকটি বিষয় নজরে দেওয়া যায়, সেটি হচ্ছে আপনি বড় ধরনের কোন ক্রাইম পড়ে থাকলে এখানকার গভার্নমেন্ট আপনার ওই ধরনের অপরাধ পেলে আপনাকে আপনার নিজের দেশে যেতে বাধ্য করবে এবং আপনার সিটিজেনশিপ থাকলে সেটি বাতিল করা হবে। বর্তমান পরিস্থিতিতে “এজোকেন” বা পি আর নেওয়াটা হচ্ছে সবচাইতে উত্তম একটি সিদ্ধান্ত। যারা বাংলাদেশী রয়েছেন তাদেরকে বলছি, যারা নিজের দেশের নাগরিকত্ব হারাতে চান না তাদের জন্য কথাই নেই কারণ আপনারা তো জানেন এখনকার নাগরিকত্ব মিলে আপনার বাংলাদেশের পাসপোর্ট তাদেরকে ফেরত দিতে হবে।

Read More  10 call center jobs in Bangladesh

অর্থাৎ জাপানের আইনে দুই দেশের নাগরিকত্ব রাখতে পারবেন না কিন্তু আপনি এজোখেন ধারী হয়ে থাকলে আপনি দেশে পাসপোর্ট ব্যবহার করতে পারবেন। এছাড়াও পি আর কিন্তু শর্টকাট ভাবে নেওয়া যায় যেমন ধরুন ৭০ অথবা ৮০ কিংবা ৯০ পয়েন্ট হলেই আপনার দশ বছর না হলে এখান থেকে পি আর নিতে পারবেন না। জাপানে নাগরিকত্ব নিতে কতদিন থাকতে হবে এ ধরনের প্রশ্ন অনেকের মধ্যেই এসে থাকে।

জাপানে আবেদন করার শিক্ষাগত যোগ্যতা

জাপানের ভিসার আবেদন করার জন্য আপনাকে অবশ্যই কিছু শিক্ষাগত যোগ্যতা থাকতে হবে। জাপানের পিছনে হলে আপনাকে নূন্যতম এইচএসসি, সমমান অথবা ডিপ্লোমা পাস করতে হবে। এছাড়াও নূন্যতম জিপিএ ২.৫ অনার্স অথবা মাস্টার্স পাস হতে হবে। তবে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীরাও এখানে আবেদন করতে পারবেন। আবেদনকারীর বয়স ১৭ থেকে ২৯ বছর হতে হবে। ‍আবেদনকারীর স্টাডিগ্যাগ থেকে থাকলেও সেটি সর্বোচ্চ ৫ বছরের জন্য থাকতে পারবে। এছাড়াও আপনার জাপানিজ ভাষায় কথা বলার দক্ষতা অর্জন করতে হবে। জাপানিজ ভাষা শিখতে বিভিন্ন ধরনের কোর্সের ব্যবস্থা রয়েছে। দেশের প্রায় সব জেলাতেই এমন কোর্সের ব্যবস্থা থাকে, সেখান থেকে কোর্স করে নিতে পারেন।

জাপানে যাওয়ার আবেদন প্রক্রিয়া

জাপানের নাগরিকত্ব পাওয়ার উপায় ২০২৪ হিসেবে জাপানে যাওয়ার জন্য আবেদন করতে হবে। এরপর আপনার তথ্যগুলো যাচাই-বাছাই করে আপনার আবেদনটি গ্রহণ করা হলেই আপনার ভিসা পাওয়া যাবে। এক্ষেত্রে আপনাকে ইউনিভার্সিটি, কলেজ অথবা ল্যাঙ্গুয়েজ ইনিস্টিটিউট গুলোতে অনলাইনের মাধ্যমে ইন্টারভিউ দিতে হবে। পরবর্তীতে যদি আপনি ইন্টারভিউতে উত্তীর্ণ হয়ে থাকেন তাহলে আপনার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জাপানের ইমিগ্রেশন বিভাগে জমা দিতে হবে। মিনিস্ট্রি অফ জাস্টিস ইন জাপান থেকে ৯০ দিনের মধ্যে পি ভিসা অথবা রেসিডেন্ট করে দেয়া হবে। এরপর আপনাদের বাংলাদেশে অবস্থিত জাপানী এম্বাসিতে প্রয়োজনের কাগজপত্রগুলো জমা দিবেন এবং এরপর আপনার ভিসাটি গ্রহণ করবেন। 

Read More  তরমুজের উপকারিতা ও অপকারিতা - কিডনি রোগী কি তরমুজ খেতে পারবে

জাপানের নাগরিকত্ব কিভাবে পাব? জাপানের নাগরিকত্ব পাওয়ার উপায় ২০২৪ 

জাপানের নাগরিকত্ব পেতে হলে কি কি বিষয় আপনাকে জানতে হবে এবং কোন উপায় গুলো অবলম্বন করে আপনি নাগরিকত্ব পাবেন এ সম্পর্কে এই অংশ আলোচনা করা হবে। জাপানের যেতে হলে আপনাকে অবশ্যই পাসপোর্ট, জন্ম সনদ, পিতা-মাতার বিবাহের সনদ ইত্যাদি প্রয়োজনে কাগজপত্র গুলো প্রয়োজন হবে। জাপানের যাওয়ার পর আপনাকে অবশ্যই পাঁচ বছর সময় থাকতে হবে। তবে এখন জাপানের নাগরিকত্ব পাওয়ার জন্য আবেদন করতে পারবেন। 

এই পদ্ধতিতে আপনাকে কোন আইনের ঝামেলায় করতে হবে না। আপনি আপনার জন্ম সনদ, আইন সনদ, পিতা-মাতার বৈবাহিক সনদ ইত্যাদি একটি নথি করে আপনি যে জায়গায় থাকবেন সেখানকার বিচার বিভাগের নাগরিকত্ব বিভাকে জমা দিতে হবে। এরপর আপনার সাক্ষাৎকার নেওয়া হবে এবং এ সকল তথ্যগুলো আবার পুনরায় জিজ্ঞাসা করা হবে। প্রথম সাক্ষাৎকারে আপনাকে আপনার নাগরিকত্বের জন্য আবেদনের জন্য ফর্মগুলো রয়েছে সেগুলো দেওয়া হবে। আপনার জাপানের নাগরিকত্ব পাওয়ার উপায় ২০২৪ হিসেবে বিভিন্ন তথ্য সম্পর্কে আপনাদের যেই ফরমগুলো রয়েছে সে সম্পর্কে তথ জানতে চাইবে। 

এ সময় আপনাকে অবশ্যই জাপানি ভাষায় দক্ষতা প্রদর্শন করতে হবে। এরপর আপনাকে আবারো সাক্ষাৎকারের জন্য ডাকা হতে পারে। আপনার আবেদন যদি অনুমোদিত হয়ে থাকে তাহলে আপনি আপনার বর্তমান ঠিকানায় চিঠি পাবেন। যদি অন্য কোন দেশে আপনার নাগরিকত্ব থেকে থাকে তাহলে জাপানি নাগরিকত্ব কখনোই পাবেন না। অন্য কোন দেশে নাগরিকত্ব থাকলে সেই নাগরিকত্ব আগে আপনাকে ত্যাগ করতে হবে। যদি বাধ্যতামূলক না হয় তবে আপনি নাগরিকত্ব থেকে সরে আসতে পারবেন। তবে আপনার জাপানের রাশিয়ান ফেডারেশন কাউন্সিলেটেড এর সাথে যোগাযোগ করতে হবে এবং আপনার নাগরিকত্ব ত্যাগ করার জন্য কি কি করতে হবে সে সম্পর্কে পরামর্শ নিতে হবে। 

উপসংহার

প্রিয় পাঠকবৃন্দ, আজকের আর্টিকেলে জাপানের নাগরিকত্ব পাওয়ার উপায় ২০২৪ সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে। জাপানে নাগরিকত্ব পেতে হলে কি কি করতে হবে কোন কোন পদ্ধতিতে আবেদন করতে হবে এবং কি কি প্রয়োজনে কাগজপত্র প্রয়োজন হবে এ সকল বিষয়ে আজকের আর্টিকেলে আলোচনা করা হয়েছে। যদি আপনিও জাপানের নাগরিকতা লাভ করতে চান তাহলে আজকের আর্টিকেল জাপানের নাগরিকত্ব পাওয়ার উপায় ২০২৪ গুলো উপকারে আসবে। এমন নতুন নতুন আর্টিকেল পড়তে এবং নতুন নতুন বিষয় সম্পর্কে জানতে আমাদের ওয়েবসাইটে বেশি বেশি ভিজিট করুন। 

Leave a Comment